আমিও বাচঁতে চাই শিশু সাদিয়ার বাঁচার আকুল আবেদন

মোঃ মোস্তাফিজার রহমান জাহাঙ্গীর, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :: সাদিয়া আক্তার শান্তা কুড়িগ্রাম জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলার তিলাই ইউনিয়নের পশ্চিম ছাটগোপালপুর গ্রামের হত দরিদ্র নুর ইসলামের কন্যা। নুর ইসলাম হত দরিদ্র এবং সামান্য খিলি পানের দোকান করে জীবিকা নির্বাহ করেন। সাদিয়ার মা মোছাঃ মরিয়ম বেগম পেশায় গৃহিনী এবং অন্যের বাড়িতে ঝি এর কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। সাদিয়ার বয়স মাত্র ৬ বছর।
ফুটফুটে চেহারার সাদিয়া আক্তার শান্তার জন্মের ১ বছরের মধ্যেই তার হার্টের ভাল্বের সমস্যা ধরা পরে। রংপুরসহ বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসা করে গেলেও দিন দিন সাদিয়ার অবস্থার কোন উন্নতি হয়নি। ইতিমধ্যে সাদিয়ার চিকিৎসা ও সংসার সামলাতে গিয়ে জমানো অর্থসহ বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণের টাকা নিয়ে ঋণের দায়ে জর্জড়িত নুর ইসলাম চোখে সর্ষেফুল দেখছেন। কন্যাকে বাচানোর জন্য চেষ্ঠার হাল ছাড়েনি নুরইসলাম ও তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম। অবশেষে ঢাকার চিকিৎসক ডাঃ আব্দুল আলিমের নিকট সাদিয়াকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে হার্টের ভাল্বের ফুটো ধরা পরে এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে হাট অপারেশন করার পরামর্শ প্রদান করেন।সাদিয়ার হার্টের অপারেশনে ২ লাখ টাকার প্রয়োজন।দরিদ্র পরিবারের পক্ষে এত টাকা জোগাড় করে অপারেশন করার নেই কোন সামর্থ। অথচ অপারেশন না করলে বাঁচানো যাবে না তার এই ফুটফুটে কন্যা সাদিয়া আক্তার শান্তাকে।
এ অবস্থায় অসহায় দরিদ্র পরিবারের কন্যা সাদিয়াকে সুস্থ জীবনে ফিরিয়ে আনতে তার পিতা সকলের নিকট আর্থিক সহযোগীতার আবেদন করেছেন।
সাদিয়ার জন্য সাহায্য পাঠাতে এবং পরিবারের সাথে যোগাযোগ করার ঠিকানা- মোঃ নুর ইসলাম (সাদিয়া পান স্টোর), ধামেরহাট বাজার, ভুরুঙ্গামারী, কুড়িগ্রাম।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

FaceBook