খুলনায় ১৯ হাজার শিশুর কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ

নিজস্ব প্রতিনিধি:: খুলনায় ১৯ হাজার ২০০ শিক্ষার্থীর কণ্ঠে ধ্বনিত হলো বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ, ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’

শনিবার বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে বিভাগীয় শহর খুলনায় ১২৮ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক এ ভাষণ পাঠ করা হয়।এতে কয়েক হাজার অভিভাবক, শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সাধারণ জনতা অংশ নেন। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এবং চাইল্ড ইন্টিগ্রিটি ও শিশু বঙ্গবন্ধু ফোরামের ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে ছিল জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ।

এরপরই শিশুদের কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ পাঠ শুরু হয়। ভাষণ পাঠের পর শিক্ষার্থীদের স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের মানুষ হয়ে সোনার বাংলা গড়ার শপথ পাঠ করান খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার।

khulna

অনুষ্ঠানে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চে ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে উপস্থিত থাকা ও বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সহচর এমন আটজন ব্যক্তিকে বিশেষ সম্মাননা দেয়া হয়।

তারা হলেন বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র ও বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন, খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, বাগেরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিব বাহিনীর খুলনা আঞ্চলিক প্রধান শেখ কামরুজ্জামান টুকু এবং খুলনা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু।

khulna

খুলনার জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন।

এতে আরও উপস্থিত ছিলেন খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, জাতীয় সংসদের হুইপ পঞ্চানন বিশ্বাস, সংসদ সদস্য সেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল, আকতারুজ্জামান বাবু, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ড. মহিদ উদ্দিন, পুলিশ কমিশনার খন্দকার লুৎফুল কবির ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এস.এম কামাল প্রমুখ।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

FaceBook