নতুন বাড়ি ছেড়ে রানাঘাটের পুরনো বাড়িতেই ফিরতে হল রাণুকে

নতুন বাড়ি ছেড়ে- রানাঘাটের স্টেশনের ভাই’রাল রাণু রাতারাতি পৌঁছে যান লাইমলাইটের কেন্দ্রবিন্দুতে। স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে লতার গান গেয়ে স্টার হয়ে যান । এরপর থেকে রাণু কী করছেন, কী পরছেন, কী গাইছেন…তাঁর প্রতিটি খবরই শীর্ষে! রাণু পাড়ি দেন বলিউডেও।

লাইম লাইটে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রাণাঘাটের পুরনো বাড়ি ছেড়ে নতুন বাড়িতে উঠে যান রাণু মণ্ডল। নি’ন্দুকেরা বলছেন, ইদানীং নাকি আর তেমন কাজ পাচ্ছেন না রাণু, তাই মিডিয়ার মুখোমুখি হচ্ছেন না। বলা যায়, মিডিয়া বিমুখ হয়ে পড়েছেন।

এখানেই শেষ নয়, সূত্রের খবর অনুযায়ী, নতুন বাড়ি ছেড়ে রানাঘাটের পুরনো বাড়িতেই ফিরে গিয়েছেন রাণু মণ্ডল। ইদানীং সেখানেই থাকছেন। কিন্তু কেন ? শোনা যাচ্ছে, পুরনো বাড়িতে ফিরে গিয়ে নিজের বায়োপিকের কাজ করছেন রাণু মণ্ডল। এই কারণেই নাকি মিডিয়ার থেকে দূরে থাকছেন।

রাণু মণ্ডলের জীবনী অবলম্বনে যে ছবিটি নির্মিত হবে সেটির পরিচালক ঋষিকেশ মণ্ডল ৷ তবে সবব থেকে বড় খবর রাণুর চরিত্রে অভিনয় করতে পারেন জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত অভিনেত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তী ৷

তিশার প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন শামীম হাসান

আসছে ভালোবাসা দিবসের জন্য সম্প্রতি নির্মিত হয়েছে খন্ড-নাটক ‘মনের আয়না’। নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন তরুণ নির্মাতা শরিফুল ইলসাম শামীম। সৃজন প্রোডাকশন হাউজের প্রযোজনায় এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন শামীম হাসান সরকার, তাসনুভা তিশা, বাবুল আহমেদ, সায়কা আহমেদ, জি সি রাজিব, জিলফিকা জুঁই, সিলভা’সহ আরও অনেকে।

নাটকের গল্পে দেখা যাবে, প্রথম দেখাই সামির সাবার প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন। সামির সাবাকে দেখতে তাদের বাসায় যাওয়ার জন্য নানান রকম তালবাহানা করেন। তবে ঠিকই একদিন সাবাদের বাড়ি যায় সামির। একটা সময় সাবার বাবা-মা সবাই বি’রক্ত হয়ে যায় সামিরের কর্মকাণ্ডে।

এক পর্যায়ে বারিওয়ালার কাছে বিচার দিলে সামিরকে বাসা ছেড়ে দেবার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। তারপর ঘটতে থাকে নানা নাটকীয় ঘটনা। এভাবেই গল্পটি সামনের দিকে এগিয়ে যাবে। নাটকটি ১৪ ফ্রেব্রুয়ারি বেসরকারি টিভি চ্যানেল এসএ টিভিতে প্রচার হবে বলে জানান নির্মাতা শরিফুল ইলসাম শামীম।

প্রিয়াঙ্কার পোশাক নিয়ে যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন হিনা খান

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। তবে এখন বলিউডের চেয়ে হলিউডেই বেশি ব্যস্ত তিনি। এছাড়া প্রায়ই বিভিন্ন নামকরা অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে দেখা যায় তাকে।

সম্প্রতি গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডে হাজির হয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা। রালফ অ্যান্ড রুশোর ডিজাইন করা ডিপ ভি নেকলাইন গাউনে রীতিমতো ঝড় তোলেন এই অভিনেত্রী। ফ্যাশনপ্রেমীদের নজর ছিল তার দিকেই। কিন্তু এ কারণে নি’ন্দুকের ক’টাক্ষও শুনতে হয়েছে তাকে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রিয়াঙ্কার পোশাক নিয়ে ট্রলের বিষয়ে কথা বলেছেন অভিনেত্রী হিনা খান। তিনি বলেন, আমি এই বিষয়টি বুঝি না। যখন কেউ নিজের পোশাক নিয়ে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন, অন্যরা তার পোশাক নিয়ে মন্তব্য করছেন কেন?

ক’টাক্ষকারীদের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, আমি তাদের বলতে চাই, আপনাদের চ্যালেঞ্জ দিচ্ছি— দশ মিনিট এই পোশাক পরে দেখান। এটি পরা এতো সহজ নয়। এই ধরনের পোশাক পরার জন্য সৌন্দর্য ও সাহস প্রয়োজন।

এর আগে তার আলোচিত পোশাক নিয়ে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া বলেন, রালফ অ্যান্ড রুশো সবসময়ই আমার শ’রীরের সঙ্গে ফিট রেখে পোশাক তৈরি করে। তৈরির সময় পোশাক বিভ্রাটের বিষয়টিও তাদের মাথায় থাকে।

সবাই কঠিন মনে করলেও অতটা সমস্যা হয় না। ডিজাইনাররা এই সমস্যা সমাধানের জন্য একটি পদ্ধতি অবলম্বন করেন। তারা নেটের মতো সূক্ষ্ম কাপড় ব্যবহার করেন, যা পোশাকটি শ’রীরের সঙ্গে আটকে রাখে। শ’রীরের রঙের সঙ্গে মিল থাকায় ছবিতে এটি ধরা পড়ে না।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

FaceBook