প্রিয়াঙ্কার গায়ে কীভাবে আটকে ছিল সেই পোশাক?

৬২তম গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের অনুষ্ঠানে সব আলো যেন নিজের দিকেই টেনে নিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। রেড কার্পেটে ফের আলো ছড়িয়েছেন ভারতীয় এই অভিনেত্রী। অনুষ্ঠানের সেসব ছবি সামাজিক যোগযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে প্রিয়াঙ্কার পোশাক নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হয়।

সেই ডিপ ভি-নেক লংগাউন সরে গিয়ে যাতে কোনো রকম অপ্রীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি না হয়, সে ব্যাপারে যথেষ্ট নজর ছিল বলে জানিয়েছেন বলিউডের ‘দেশি গার্ল’ খ্যাত এই অভিনেত্রী।

পুরস্কার মঞ্চে পোশাক বিভ্রাট এড়াতে কী করেছিলেন তার ডিজাইনাররা- সে কথা যুক্তরাষ্ট্রের একটি ম্যাগাজিনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিজেই জানিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা।

গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের রাতে প্রিয়াঙ্কা পরেছিলেন সাদা রঙের একটি বুক খোলা গাউন। আর তার নাভির ওপর থাকা একটি উজ্জ্বল পাথর সকলের চোখ ধাঁধিয়ে দিয়েছে বলেই আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়।

প্রিয়াঙ্কার বিশেষ ডিপ ভি-নেক লংগাউন তৈরি করেছিলেন তামারা র‌্যাল্ফ ও মাইকেল রুশো। পোশাক তৈরির সময়ই এই বিষয়টি তারা মাথায় রেখেছিলেন বলে জানিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা।

কিন্তু কী করেছিলেন রুশো ও র‌্যাল্ফ? সেই রহস্য ফাঁস করে প্রিয়াঙ্কা বলেছেন, ‘সবাই হয়তো ভাবছিল এই পোশাক সামলানো ‌কঠিন। কিন্তু আমার ত্বকের রঙের জন্য সঙ্গে মিলিয়ে ‘তুল’ দিয়ে বেঁধে রাখা ছিল সেই পোশাক। নেটের মতো থাকায় আপনারা দেখতে পাননি। ক্যামেরাতেও ধরা পরেনি সেটি।’

‘তুল’ হলো এক ধরনের জরির মতো সূক্ষ পাতলা কাপড়। সেই সূক্ষ কাপড় প্রিয়াঙ্কার গায়ের রঙের সঙ্গে মিলে যাওয়াতেই আলাদা করে তা আর চোখে পড়েনি।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

FaceBook