চট্টগ্রামের ফতেয়াবাদ এলাকায় মাদকের রমরমা ব্যবসা, ধ্বংস পথে যুব সমাজ ।

মোঃ কামাল উদ্দিন, চট্রগ্রাম:: চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ১২নং চিকনদন্ডী ইউনিয়নসহ ফতেয়াবাদ, চৌধুরীহাট বানিয়াপাড়া এলাকায় চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। দিনের বেলা থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত উক্ত এলাকার বিভিন্ন স্থানে উঠতি বয়সের যুবকদের মাদক সেবনের জন্য আনাগোনা করতে দেখা যায়।

অভিযোগ উঠেছে, হাটহাজারী থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে মাদক ব্যবসায়ীরা অন্যান্য উপজেলার মতো হাটহাজারী উপজেলায়ও ভারতীয় ফেনসিডিল, বার্মা থেকে আসা ইয়াবা, হেরোইন, মদ ও গাঁজাসহ নেশা জাতীয় দ্রব্যাদি বিক্রি করছে। আর এসব ভয়াল মাদকের ছোবলে বিষাক্ত হয়ে উঠেছে গোটা হাটহাজারী উপজেলার ফতেয়াবাদ-চৌধুরীহাট এলাকার যুবসমাজ। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ফতেয়াবাদের এক বাসিন্দা বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে হাটহাজারী উপজেলাকে মাদক নির্মূল করার বিশেষ অভিযান পরিচালনার জন্য নির্দেশ থাকার পরেও এসব এলাকায় মাদকের ব্যবসা অজ্ঞাত কারণে বেড়েই চলেছে।

তিনি আরো বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কিছু দূর্ণীতি পরায়ণ কর্মকর্তা ও আওয়ামীলীগ নামধারী রাজনৈতিক দলের কয়েকজন অসৎ নেতাদের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে মাদক চোরাচালানের সিন্ডিকেট তৈরী করে জমজমাট মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে যাচ্ছে এই এলাকার মাদক ব্যবসায়ীরা।

ফলে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার তৎপরতা ঝিমিয়ে পড়ছে মাদক নির্মূলের বিশেষ অভিযান থেকে। ফতেয়াবাদ এলাকার এক সিএনজি ড্রাইভার জানান, মাঝে মধ্যে দুই একটা মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা হলেও মাদক বিক্রেতারা বরাবরই থেকে যাচ্ছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে। যার প্রভাবে ফতেয়াবাদ-চৌধুরীহাট এলাকার যুব সমাজের উপর পড়ছে মাদকের ভয়াল আগ্রাসী থাবা। অনুসন্ধানে জানা যায়, আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কিছু অসৎ কর্মকর্তাদের সাথে মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক স¤্রাটদের সাপ্তাহিক/মাসিক চুক্তি থাকার কারনে মাদক ব্যবসায়ীরা হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা।

এভাবে মাদকের ব্যবসা চলতে থাকলে হয়ত একদিন করোনা ভাইরাসের থাবার মতো কতো যুবকের প্রাণ অকালে নিভে যাবে মাদকের নীল ছোবলে। ফতেয়াবাদ এলাকার একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন, ফতেয়াবাদ চৌধুরীহাট এলাকাগুলো মাদকের জোঁয়ারে ভাসছে। তৎসামান্য অর্থের বিনিময়ে সহযোগীতা করে আসছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কিছু কর্মকর্তা এবং এই মাদক ব্যবসায়ীদের সেল্টার দিচ্ছে আওয়ামীলীগের কিছু নামধারী নেতারা। মাদক ব্যবসায়ী চক্রটি সংঘবদ্ধ হয়ে নতুন ভাবে কৌশল পরিবর্তন করে মাদকের বাণিজ্য চালিয়ে আসায় ফতেয়াবাদ এলাকার জনগন আস্থা হারিয়ে ফেলছে প্রশাসন ও মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপর থেকে।

এ ব্যাপারে হাটহাজারী থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদ উল আলম ডেইলী ঢাকা নিউজ-কে  জানান, মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সম্রাট যেই হোক না কেন কাউকে কোন ছাড় নাই। এ ছাড়া সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ভুমিদস্যু ও মাদক ব্যবসায়ীদের হাটহাজারীর বুকে কোন ঠাই হবেনা।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

FaceBook